পাহাড়ের ৩ জায়গায় কাটা হল রাস্তা, নেপথ্যে কি গুরুংপন্থীরা?

শিলিগুড়ি: দিলীপ ঘোষের নিগ্রহের পরের দিনই পাহাড় অশান্ত করার চেষ্টা। জঙ্গলমহলের কায়দায় দার্জিলিংয়ের তিন জায়গায় কেটে দেওয়া হল রাস্তা। প্রশাসন জানিয়েছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে। এই ঘটনায় আঙুল উঠেছে বিমল গুরুংপন্থীদের দিকে।

শনিবার গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার প্রতিষ্ঠা দিবস। বিমল গুরুংকে কার্যত চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ওই দিন সমান্তরালভাবে প্রতিষ্ঠা দিবস পালন করবেন বিনয় তামাং। দার্জিলিংয়ের চকবাজারে বিশাল জমায়েতের ডাক দেওয়া হয়েছে। অভিযোগ, এই কর্মসূচি বানচাল করতেই বিমলপন্থীরা এমন কাণ্ড ঘটিয়েছে। বিনয় অনুগামীরা যাতে চকবাজারে যেতে না পারেন তার জন্য এই ঘটনা। পাতলেবাস থেকে সিংলা যাওয়ার রাস্তা-সহ পাহাড়ের তিনটি সড়ক কাটা হয়। যে এলাকা থেকে বিনয় অনুগামীরা আসতে পারেন বা তাদের জমায়েতের সম্ভাবনা রয়েছে সেই সব এলাকা বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ ও সেনা। তবে পাহাড়ের এই ঘটনার সঙ্গে জঙ্গলমহলের মিল পাচ্ছেন কেউ কেউ। জনসাধারণ কমিটির কায়দায় পাহাড়ের তিন জায়গা রাস্তা কাটা হয়েছে। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে পাহাড়ে নতুন করে অশান্তি ছড়াতে গুরুংপন্থীরা এই কাজ করতে পারে। কোথাও কোনও সমস্যা হলে পুলিশ যাতে দ্রুত পৌঁছাতে না পারে তার জন্য রাস্তা কাটার ছক নেওয়া হয়েছে। এই ব্যাপারে দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক জয়শী দাশগুপ্ত জানান এই ঘটনার ওপর নজর রাখা হচ্ছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা হচ্ছে। পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন। তাঁর বক্তব্য এই বিষয়ে রাজ্য প্রশাসন উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে।

বৃহস্পতিবার দার্জিলিং সদর থানার সামনে নিগৃহীত হয়েছিলেন দিলীপ ঘোষ। বিজেপি রাজ্য সভাপতি শুক্রবার সকালে সিকিমের নামচির উদ্দেশ্যে রওনা দেন। এদিন অবশ্য তাঁকে কোনও অপ্রীতিকর অবস্থার মুখে পড়তে হয়নি। এদিকে পাহাড়ে মোর্চা সমর্থকদের মৃত্যুর ঘটনায় সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হচ্ছে মোর্চা। ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবিতে দলের সাধারণ সম্পাদক রোশন গিরি শীর্ষ আদালতে আবেদন জানাবেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *