Skip to Content

পশ্চিমবঙ্গ রাষ্ট্রীয় সেবা যোজনার অধিবেশন

পশ্চিমবঙ্গ রাষ্ট্রীয় সেবা যোজনার অধিবেশন

Be First!

বি এন ই, বিশেষ প্ৰতিনিধি : ২০২২ এর মধ্যে দুর্নীতিমুক্ত সুস্থ ভারত গঠনের আহ্বান কেন্দ্রীয় যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক মন্ত্রী রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোরের গতকাল সকাল দশটা থেকে বারোটা পর্যন্ত নিউটাউন অ্যামিটি ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠিত হয় পশ্চিমবঙ্গ রাষ্ট্রীয় সেবা যোজনার একটি বিশেষ অধিবেশন (State level interactive session NSS functionaries of West Bengal)| অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক মন্ত্রী মাননীয় রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোর।এছাড়া অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এন.এস.এস পরিচালক বীরেন্দ্র মিশ্র, অ্যামিটি ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ধ্রুবজ্যোতি চট্টোপাধ্যায়, এন.এস.এস আঞ্চলিক পরিচালক সরিতা প্যাটেল এবং এন.এস.এস রাজ্য আধিকারিক রমাপ্রসাদ ভট্টাচার্য। ২৫ টি স্কুল- কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ৮০০ জন এন.এস.এস ছাত্রছাত্রীর উপস্থিতিতে বক্তারা আত্মগঠন এবং দেশগঠনে এন.এস.এস এর ভূমিকার কথা স্মরণ করেন। রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোর তাঁর সংক্ষিপ্ত এবং স্পষ্ট বক্তৃতার প্রথমেই বাংলা ভাষাতে উপস্থিত ছাত্রছাত্রী ও অন্যান্য শ্রোতাদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন- ১৯৬৯ সালে মাত্র চারহাজার সদস্য নিয়ে গঠিত হওয়া এন.এস.এস বর্তমানে চল্লিশ লক্ষেরও অধিক সদস্য নিয়ে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজে ব্রতী হয়েছে। তিনি জানান, বিদেশে চাকরিপ্রার্থীদেরকে সমাজসেবায় তার কতটা অবদান তা তার আবেদনপত্রে উল্লেখ করা বাধ্যতামূলক। সেইদিন আর দূরে নয় যখন ভারতেও এই পদ্ধতির প্রচলন হবে। উন্নত ভারত গঠনের জন্য তিনি নারী- পুরুষ সমান অধিকার, স্বচ্ছতা এবং ডিজিটাল ক্যাশলেস এই তিনটি বিষয়ের পক্ষে দৃঢ় সওয়াল করেন। তাঁর মতে এই তিনটি বিষয়ই কোনো না কোনো ভাবে দেশকে মজবুত ও দুর্নীতিমুক্ত করতে সাহায্য করে। এন.এস.এস ছাত্রছাত্রীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ভারতকে শক্তিশালী করার জন্য কি অন্য দেশের সাহায্য প্রার্থনা করা উচিত। এইদেশকে শক্তিশালী করার দায়িত্ব আমাদেরই। প্রধানমন্ত্রীর ‘ এক ভারত শ্রেষ্ঠ ভারত ‘ এর কথা স্মরণ করিয়ে আগামী ৩১শে অক্টোবর বল্লভভাই প্যাটেলের জন্মদিনে সকলকে সারা দেশ জুড়ে আয়োজিত রান ফর ইউনিটিতে অংশ নিতে আহ্বান জানান শ্রীরাঠোর। বক্তব্যের শেষে উপস্থিত শ্রোতাদের একটি শপথবাক্য পাঠ করান তিনি, যেখানে ২০২২ সালের মধ্যে দুর্নীতি- দারিদ্র- জাতপাত এবং সন্ত্রাসমুক্ত এক সুস্থ নতুন ভারত গঠনের শপথ নেওয়া হয়।অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয় জাতীয় সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে এমনটাই জানালেন দক্ষিণ কলকাতা নেহরু যুব কেন্দ্রের ইয়ুথ কোঅর্ডিনেটর রঘুমনি চ্যাটার্জী।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail
Previous
Next

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*