Skip to Content

পঞ্চায়েত ভোটের আগে কমিশন ও  ডিএম বৈঠক

পঞ্চায়েত ভোটের আগে কমিশন ও ডিএম বৈঠক

Be First!

বি এন ই , কলকাতা: পুজোর আগে থেকেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে পঞ্চায়েত ভোটের প্রস্তুতি নিয়েছে রাজ্য পঞ্চায়েত দপ্তর। এবার রাজ্য নির্বাচন কমিশনও সেই প্রস্তুতি শুরু করে দিল। তারই প্রথম ধাপ হিসাবে রাজ্য পঞ্চায়েত দপ্তরের কর্তাব্যক্তিদের সঙ্গে ঘণ্টা দুয়েক আলোচনা করেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার অমরেন্দ্রকুমার সিং। সম্প্রতি জেলাশাসকদের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার। তবে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ওই বৈঠক হবে। সেই বৈঠকে ২০টি জেলার জেলাশাসক তথা জেলা পঞ্চায়েত নির্বাচন আধিকারিক, অতিরিক্ত জেলাশাসক (পঞ্চায়েত) এবং জেলা পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন আধিকারিকও থাকবেন বলে জানা গিয়েছে।
কমিশন সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজ্য নির্বাচন কমিশনের দপ্তর থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কমিশনার অমরেন্দ্র সিং জেলাশাসকদের সংরক্ষণ এবং এলাকা পুনর্বিন্যাস নিয়ে নির্দেশ দেবেন। এক মাসের মধ্যে সেই কাজ শেষ করে ফেলতে নির্দেশ দেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে।রাজ্যের ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের ৬০ হাজার আসনে সংরক্ষণের খসড়া তালিকা তৈরির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। সেটিতেই সিলমোহর লাগাবে রাজ্য নির্বাচন কমিশন, না নতুন করে তৈরি হবে, এখন সেটাই দেখার। সংরক্ষণের এই তালিকার উপর ভিত্তি করেই এবার পঞ্চায়েত ভোট হবে।
রাজ্য নির্বাচন কমিশনার বলেন, এক আসন পরপর সংরক্ষণ হচ্ছে বলে অভিযোগ আছে।এবার যাতে তা না হয়, তার জন্য কমিশনের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়। সংরক্ষণ ও এলাকা পুনর্বিন্যাসের আরও অনেক খুঁটিনাটি বিষয় ও আইনি ব্যাখ্যা নিয়ে এদিন পঞ্চায়েত দপ্তরের কর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার। সেই আলোচনায় রাজ্য নির্বাচন কমিশনার ছাড়াও কমিশনের সচিব ও সমান গনি এবং যুগ্মসচিব শান্তনু মুখোপাধ্যায় উপস্থিত ছিলেন। রাজ্য পঞ্চায়েত দপ্তরের তরফে উপস্থিত ছিলেন ওই দপ্তরের উপদেষ্টা দিলীপ পাল, যুগ্ম সচিব দিব্যেন্দু দাস এবং যুগ্ম বিডিও (সদর) শান্তনু সরকার।
সংরক্ষণের প্রশ্নে কয়েকটি বিষয়ে ব্যাখ্যা চান রাজ্য নির্বাচন কমিশনার। পঞ্চায়েতর দপ্তরের কর্তাব্যক্তিরা তাঁকে প্রতিটি বিষয়ে বুঝিয়ে বলেন। সেই সঙ্গে জানিয়ে দেওয়া হয়, গত পঞ্চায়েত ভোটে বিজোড় সংখ্যায় সংরক্ষণ হয়েছিল, এবার সরকার চায় জোড়সংখ্যায় সংরক্ষণ হোক। সাধারণ ও তফসিলি জাতি ও উপজাতি মিলিয়ে ৫০ শতাংশ আসন মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত হবে।পঞ্চায়েত নির্বাচন আইন অনুযায়ী রাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনা করেই ভোটপ্রক্রিয়া সাঙ্গ করতে হবে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের।রাজ্য নির্বাচন কমিশন রাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনা করেই নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু করে দিল।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail
Previous
Next

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*